আজ পর্দা উঠছে গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসবের

Share Now..

করোনা পরিস্থিতি কিছুটা স্বাভাবিক হতেই সরব হতে শুরু করেছে দেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গন। সেই তালিকায় রয়েছে মঞ্চনাটকও। এরইমধ্যে বিভিন্ন মঞ্চে শুরু হয়েছে নতুন নাটক মঞ্চায়ন। সেই ধারাবাহিকতায় দীর্ঘ বিরতির পর আজ থেকে শুরু হচ্ছে গঙ্গা-যমুনা সাংস্কৃতিক উৎসব।

রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমির ৫টি মিলনায়তনে আগামী ১২ অক্টোবর পর্যন্ত চলবে এই উৎসবটি। তবে এবারের উৎসবে থাকছে না ভারতীয় কোনো সাংস্কৃতিক দলের উপস্থিতি। শুধুমাত্র দেশীয় সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর পরিবেশনায় অনুষ্ঠিত হবে এবারের উৎসব। এবারের উৎসবটি উৎসর্গ করা হয়েছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে।

এবারের উত্সবে ঢাকা ও ঢাকার বাইরের ৩৬টি নাট্যদলের মোট ৩৬টি মঞ্চনাটক প্রদর্শনী হবে। পাশাপাশি সংগীত, নৃত্যকলা ও আবৃত্তি মিলনায়তনে ৪৪টি সংগীত, আবৃত্তি ও নৃত্য দলের পরিবেশনা থাকছে। এছাড়া উন্মুক্ত মঞ্চে ১২টি পথ নাটক, ১১টি আবৃত্তি সংগঠনের পরিবেশনা, ১২টি সংগীত সংগঠন, ১১টি নৃত্য সংগঠন, ১০টি শিশুদলের একক আবৃত্তি ও সংগীত পরিবেশনাও থাকছে উৎসবে।

আজ উদ্বোধনী সন্ধ্যায় মূল হলে মঞ্চস্থ হবে থিয়েটার প্রযোজনা ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়’। নাটকটি রচনা করেছেন সৈয়দ শামসুল হক এবং নির্দেশনা দিয়েছেন আবদুল্লাহ আল মামুন। পরীক্ষণ থিয়েটার হলে থাকছে আরণ্যক নাট্যদলের প্রযোজনা ‘কহে ফেসবুক’। নাটকটির রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন মামুনুর রশীদ। এছাড়া স্টুডিও থিয়েটার হলে জেলা শিল্পকলা একাডেমি, ঢাকার প্রযোজনা ‘জনকের মৃত্যু নেই’ মঞ্চায়িত হবে। এটি রচনা করেছেন আবদুল হালিম আজিজ এবং নির্দেশনা দিয়েছেন স্মরণ সাহা।

Leave a Reply

Your email address will not be published.