উষ্ণায়নের কারণে জন্মাচ্ছে অপরিণত শিশু: রিপোর্ট

Share Now..

বৈশ্বিক উষ্ণায়নের কারণে খুব ক্ষতি হচ্ছে মাতৃগর্ভে থাকা ভ্রূণের। উদ্বেগজনক ভাবে বাড়ছে অপরিণত সদ্যোজাতের সংখ্যা। পাশাপাশি জন্মের পর শিশুদের ওজন বাড়ছে অবাঞ্ছিত ভাবে। তার ফলে প্রথম শৈশবেই অনাকাঙ্ক্ষিত স্থূলত্বের শিকার হচ্ছে শিশুরা। এছারা বিভিন্ন ধরনের জটিল রোগের শিকার হয়ে শিশুদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার ঘটনাও তুলনামূলক হারে অনেক বাড়ছে।

বৈশ্বিক উষ্ণায়ন ও দ্রুত হারে জলবায়ু পরিবর্তন মাতৃগর্ভে থাকা ভ্রূণ, সদ্যোজাত শিশু ও শিশুর শৈশবকে কতটা বিপজ্জনক করে তুলেছে তার এমনই ভয়াবহ চিত্র প্রকাশ পেয়েছে সাম্প্রতিক ৬টি গবেষণায়। গবেষণাপত্রগুলো প্রকাশিত হয়েছে আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান গবেষণা পত্রিকা ‘জার্নাল পিডিয়াট্রিক অ্যান্ড পেরিন্যাটাল এপিডিমিয়োলজি’-র বিশেষ সংখ্যায়।
গবেষণাপত্রগুলোর মধ্যে কয়েকটি এও জানিয়েছে, উষ্ণায়ন ও খুব দ্রুত হারে জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য বিশ্বজুড়ে দাবানলের ঘটনা ও তার তীব্রতা বেড়েছে। এর ফলে যে ক্ষতিকারক ধোঁয়ার সৃষ্টি হচ্ছে তা সদ্যোজাতের নানা ধরনের শারীরিক জটিলতার জন্ম দিচ্ছে। যার বোঝা তাদের অনেক বেশি বয়স পর্যন্ত বয়ে যেতে হচ্ছে। পাশাপাশি, জীবাশ্ম-জ্বালানির অনিয়ন্ত্রিত ব্যবহারের জন্য যে মাত্রাধিক বায়ুদূষণ হচ্ছে তার জেরে মহিলাদের প্রজনন ক্ষমতাও কমে যাচ্ছে আশঙ্কাজনক হারে।

যুক্তরাষ্ট্র, ডেনমার্ক, ইজরায়েল, অস্ট্রেলিয়া-সহ গোটা বিশ্বে গবেষণা চালিয়ে লেখা হয়েছে এই গবেষণাপত্রগুল। বিষয়টিকে ‘ফোকাস’ করতেই সেগুলো আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান গবেষণা পত্রিকার বিশেষ সংখ্যায় একই সঙ্গে প্রকাশ করা হয়েছে বলে পত্রিকা প্রকাশকের পক্ষ থেকে জানানো হয়।

উষ্ণায়নের সঙ্গে সদ্যোজাতের ওজন-বৃদ্ধির বিপজ্জনক প্রবণতা ধরা পড়েছে কয়েকটি গবেষণায়। ইজরায়েলে ২ লক্ষ শিশুর উপর পরীক্ষা চালিয়ে দেখা গিয়েছে, উষ্ণায়নের জন্য জন্মের এক বছরের মধ্যেই অস্বাভাবিক ওজন-বৃদ্ধির শিকার হচ্ছে শিশুরা। সেই ওজন-বৃদ্ধি পরে অত্যন্ত বিপজ্জনক হয়ে উঠছে অন্তত পাঁচ থেকে ১০ শতাংশ শিশুর ক্ষেত্রে। এর জেরে বিশ্বে শিশুদের অস্বাভাবিক স্থূলত্ব মহামারির আকার নিয়েছে বলেও কয়েকটি গবেষণাপত্রে উল্লেখ করা হয়েছে। গবেষণাপত্রগুলো জানিয়েছে, এই মূহূর্তে বিশ্বের অন্তত ১৮ শতাংশ শিশুই অস্বাভাবিক ওজন বা স্থূলত্বের শিকার।
দাবানলের ধোঁয়া অন্তঃসত্ত্বা ও সদ্যোজাতের কতটা ক্ষতি করছে সেই ছবিও স্পষ্ট হয়েছে কয়েকটি গবেষণাপত্রে। দেখা গেছে, দাবানলের ধোঁয়া সন্তান ধারণের সামান্য সময় আগে কোনও মহিলার নানা ধরনের শারীরিক জটিলতার আশঙ্কা দ্বিগুণ বাড়িয়ে দিচ্ছে। তার জেরে সন্তানের জন্মের পর মায়েরা যেমন দীর্ঘমেয়াদি নানা ধরনের রোগের শিকার হচ্ছেন, তেমনই জন্মের পর থেকেই সদ্যোজাতরাও নানা ধরনের শারীরিক জটিলতার শিকার হয়ে পড়ছে। অপরিণত শিশুর জন্মের সংখ্যা বাড়ছে। ‘গ্যাস্ট্রোস্কাইসিস’ নামে একটি জটিল রোগের শিকার হচ্ছে সদ্যোজাতরা। যে রোগে সদ্যোজাতের অন্ত্র বা অন্য অঙ্গগুলি প্রসারিত হয়ে ত্বকে ছিদ্র তৈরি করে বেরিয়ে আসে শরীরের বাইরে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.