বছরের সেরা কাঙ্ক্ষিত নারী রিয়া

Share Now..

আর মাত্র কয়েকদিন পরই বলিউড তারকা সুশান্ত সিং রাজপুতের ১ম মৃত্যুবার্ষিকী। ২০২০-এর ১৪ জুন মুম্বাইয়ের বান্দ্রায় নিজের ফ্ল্যাটে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায় সুশান্তকে। সুশান্তের এই আকস্মিক মৃত্যুর কারণে বলিউড ইন্ডাস্ট্রিতে জন্ম নিয়েছে একের পর এক বিতর্ক। অধিকাংশই মানে করছেন, তিনি আত্মহত্যা করেননি, তাকে হত্যা করা হয়েছে। যাই হোক না কেনো- এই অভিনেতার মৃত্যু রহস্য আজও কাটেনি। সুশান্ত মৃত্যুর ঘটনায় যাকে ঘিরে সবচেয়ে বেশি আলোচনা ও যার দিকে অভিযোগের আঙুল তোলা হচ্ছে তিনি সুশান্তের প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তী।

‘সিবিআই’-এর জেরার মুখোমুখি হয়ে প্রায় ২৮ দিন জেলও খেটে ছিলেন এই অভিনেত্রী। সুশান্ত সিংয়ের মৃত্যুতে মাদকচক্র জরিত হওয়ার এনসিবি কাছে চলে গিয়েছে তদন্তের দায় ভার। একাধিকবার এনসিবির জেরার সম্মুখীনও হয়েছেন তিনি।
এরমধ্যে তার জন্য সুখবর-যুক্তরাজ্যভিত্তিক দৈনিক ‘দ্য টাইমস’-এর জরিপে উঠে আসা ২০২০ সালে ভারতের প্রথম ৫০ কাঙ্ক্ষিত নারীরদের তালিকা প্রকাশ পেয়েছে। যেখানে সেরার সেরা হয়ে ‘সর্বোচ্চ কাঙ্ক্ষিত নারী’-এর শিরোপা পেয়েছেন রিয়া চক্রবর্তী।২০২০ সালের সেরা কাঙ্ক্ষিত নারীর মুকুট গিয়েছে রিয়া চক্রবর্তী কাছে। বিভিন্ন ক্ষেত্র থেকে আসা ৪০ বছরের কম বয়সী ৫০ জন নারীদের অপরিসীম সৌন্দর্য, প্রতিভার জেরে নির্ধারণ করা হয় সেরা কাঙ্ক্ষিত নারীকে। আর তা নির্ধারণ করার দায়িত্ব থাকে সাধারণ মানুষের উপরেই। একটি অনলাইন ভোটের ভিত্তিতেই এই প্রতিযোগিতার র‍্যাঙ্কিং স্থির করা হয়।দ্বিতীয় স্থানে আছেন মডেল ও অভিনেত্রী ‘মিস ইউনিভার্স’ খ্যাত অ্যাডলিন কাস্টেলিনো। তৃতীয় স্থানে রয়েছেন অভিনেত্রী দিশা পাটানি। চতুর্থ স্থানে আছেন কিয়ারা আদভানী। তালিকার পাঁচে আছেন বলিউডের আরেক আবেদনময়ী অভিনেত্রী দীপিকা পাডুকোন। ছয় নম্বরে ক্যাটরিনা কাইফ। সাত নম্বরে রয়েছেন জ্যাকুলিন ফার্নান্দেজ। আটে আছেন তেলেগু অভিনেত্রী অনুপ্রিয়া গোয়েঙ্কা। নয় নম্বরে রয়েছেন মডেল ও অভিনেত্রী রুহি সিংহ। দশ নম্বরে আছেন মডেল ও ‘মিস দিভা সুপ্রান্যাশনাল’ আভৃতি চৌধুরী। এছাড়াও রয়েছেন রাশ্মিকা মান্দানা, শ্রুতি হাসান, ইয়ামি গৌতম, শ্রদ্ধা কাপুর, তারা সুতারিয়া, জাহ্নবী কাপুর, কৃতি শ্যাননসহ অনেকেই। তবে এ তালিকায় নতুনভাবে যুক্ত হয়েছেন টলিউড অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী, ফাতিমা সানা শেখ, শাহনাজ গিল প্রমুখ।

একাধিক ওঠা পড়ার মধ্যেও ভেঙে পড়েননি রিয়া। তার বিরুদ্ধে ক্ষোভ, দুর্ব্যবহার, সমালোচনার মাঝেও নিজের মর্যাদা তিনি ধরে রেখেছেন। তার আত্মবিশ্বাস তাকে আজ এই শিরোপার অধিকারী করেছে।

রিয়ার কথায়, ‘আমার স্বপ্ন এখন আমার থেকে অনেক দূরে। আমি এখন কেবল একটু দীর্ঘ নিঃশ্বাস নিতে চায়, যেখানে এই সব এজেন্সিগুলো আমার পিছু করবে না।’
২০১৯ সালের ৫০ জন ‘মোস্ট ডিজাইরেবল উইমেন’-এর তালিকায় প্রথম স্থানে ছিলেন দিশা পাটানি। দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন সুমন রাও। তিন নম্বরে ছিলেন ক্যাটরিনা কাইফ, চার নম্বরে দীপিকা পাড়ুকোন ও পাঁচ নম্বরে বর্তিকা সিং।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *