যশোরের বাঘারপাড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় ৫ জন আহত

Share Now..

এস আর নিরবঃ

যশোরের বাঘারপাড়ায় নির্বাচনী সহিংসতায় পাঁচ জন আহত হয়েছেন। আজ সোমবার সকালে বাঘারপাড়া উপজেলার জহুরপুর ইউনিয়নে এই ঘটনা ঘটে। আহতদের মধ্যে একজন স্বতন্ত্র প্রার্থী রয়েছেন।

তার দাবি, আজ সোমবার মনোনয়নপত্র জমা দিতে যাওয়ার সময় প্রতিপক্ষ নৌকা প্রতীকের প্রার্থীর সমর্থকরা তাদের উপর হামলা করেন। এসময় তিনি ও তার ছেলেসহ পাঁচজন আহত হন। আহতদের যশোর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

আহত বাঘারপাড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি ও সাবেক চেয়ারম্যান বদর মোল্লা বলেন, এদিন সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তিনিসহ অন্যান্যরা একটি মাইক্রোবাস যোগে মনোনয়নপত্র জমা দিতে বাঘারপাড়া উপজেলা নির্বাচনী কর্যালয়ে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে হুলিহট্টমোড়ে সন্ত্রাসীরা তার গাড়িতে ব্যারিকেড দেয়। এসময় ধারালো অস্ত্রধারী সন্ত্রাসীরা তাকে টেনে হিচড়ে গাড়ি থেকে নামিয়ে বেধড়ক মারপিট করে মনোনয়নপত্র ছিনিয়ে নেয়। একইসাথে তার কর্মীদের ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করা হয় এবং মাইক্রোবাস ও তিনটি মোটরসাইকেল ভাঙচুর করা হয়েছে। পরে তাদের চিৎকারে গ্রামবাসী এসে উদ্ধার করে যশোর আড়াইশ’ শয্যা বিশিষ্ঠ জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করেছে।

হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আহতরা জানান, আজ সোমবার সকালে পথিমধ্যে জামতলা নামক জায়গায় পৌঁছালে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আসাদুজ্জামান মিন্টুর লোকজন হিসেবে পরিচিত আব্দুর রশিদ (৩১), জসিম (৩০), মাসুদ (৩০), করিমসহ (২৮) ২০-২৫ জন তাদের উপর হামলা করে। এসময় স্বতন্ত্র পার্থী বদরউদ্দিন মোল্যা (৬৫), তার ছেলে আশিক ইকবাল (৩৪), কর্মী মাহাবুব (৩৫), লোটাসসহ (৪০) অন্তত পাঁচজন আহত হন। স্থানীয়রা তাদের উদ্ধার করে যশোর জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে আসেন।

তবে নৌকার প্রার্থী ইউনিয়ন যুবলীগের আহবায়ক আসাদুজ্জামান মিন্টু বলেছেন, ‘এ ঘটনায় আমার কোন কর্মী বা সমর্থক জড়িত নেই। পরিকল্পনা অনুযায়ী শালিখা উপজেলার জামায়াত-বিএনপির লোকজনকে ব্যবহার করে স্বতন্ত্র প্রার্থী নিজেই এ ঘটনা ঘটিয়েছে। যার দোষ চাপাচ্ছে আমার কর্মী-সমর্থকের উপর।’

এ বিষয়ে বাঘারপাড়া থানার ওসি ফিরোজ উদ্দিন বলেন, ঘটনা শুনেছি। ঘটনাস্থলে ও হাসপাতালে পুলিশ পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.