শিবচরে মেয়ের বাড়ি থেকে বৃদ্ধ পিতার মরদেহ উদ্ধার

Share Now..


মাদারীপুরের শিবচরে মেয়ের বাড়ি থেকে বৃদ্ধ পিতার মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১০ মে) সকালে উপজেলার বন্দরখোলা ইউনিয়নের মফিতুল্লাহ্ হাওলাদার কান্দি গ্রামে এই ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও এলাকাবাসীর সূত্রে জানা যায়, ৮৪ বছর বয়সী মোঃ হাকিম মাতুব্বর নদী ভাঙ্গনের কবলে পরে গত প্রায় তিন বছর যাবত নিজ এলাকা ফরিদপুরের সদরপুর উপজেলার চরনাছিরপুর থেকে ঘর বাড়ি নিয়ে স্ত্রীসহ একমাত্র মেয়ে ফাহিমার বাড়ি শিবচর উপজেলার বন্দরখোলা ইউনিয়নের মফিতুল্লাহ্ হাওলাদার কান্দি গ্রামে বসবাস করতেন।

ঈদুল ফিতরের তিনদিন পর মোঃ হাকিম মাদবর মেয়ের বাড়ি থেকে নিজ গ্রাম পার্শ্ববর্তী উপজেলা সদরপুরের নাজির মামুদ হাজির কান্দিতে বসবাসরত দুই ছেলে লাক্ষু মাতুব্বর ও বাবুল মাতুব্বরের বাড়িতে বেড়াতে যান। সেখান থেকে মঙ্গলবার (৯ মে) সকালে কাউকে কিছু না বলে বের হয়ে চলে আসেন। পরে বুধবার (১০ মে) সকালে মেয়ে ফাহিমা বেগমের বাড়ির টয়লেটের সামনে বসত ঘরের দক্ষিণ পাশে গলায় রশি পেচানো অবস্থায় উপুর হয়ে পরে থাকা অবস্থায় দেখতে পায়।

নিহত মোঃ হাকিম মাতুব্বরের মেয়ে ফাহিমা বেগম বলেন, আমার বাবা আমার বাড়িতেই ঘর নির্মান করে থাকেন তিন বছর যাবত। ঈদের তিনদিন পর বাবা আমার ভাইদের বাড়িতে বেড়াতে গিয়েছেন। আজ সকালে আমার ছেলে টয়লেটে যাওয়ার সময় দেখতে পায় আব্বা গলায় রশি দিয়ে ঝুলে মাটিতে হামাগুরি অবস্থায় পরে আছে। পরে আমরা রশি কেটে দ্রুত ঘরে নিয়ে যাই। তখন বুঝতে পারি বাবার দেহ শক্ত হয়ে আছে। বাবা আর নেই।

নিহতের বড় ছেলে লাক্ষু বলেন, আমার বাবা আমার বোনের বাড়িতেই থাকতো। ঈদের পর আমাদের বাড়ি গিয়েছিলো। গতকাল আমাদের বাড়ি থেকে চলে আসছে সকালে। আমি আজ মাছ ধরতে নদীতে গিয়েছিলাম। পরে শুনলাম আব্বা মারা গেছে। শুনে এখানে আসলাম।

এই ঘটনায় শিবচর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, এই ব্যাপারে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। পরবর্তীতে আইন অনুযায়ী ব্যাবস্থা নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *