শৈলকুপায় গাছিরা খেজুর গাছ পরিচর্যায় ব্যস্ত

Share Now..


শাহীন আক্তার পলাশ, শৈলকুপা(ঝিনাইদহ) প্রতিনিধিঃ ঝিনাইদহের শৈলকুপার গাছিরা রস আহরণের জন্য খেজুর গাছ পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় পার করছে। কয়েকদিনের মধ্যেই রস ঘরে আসবে আর তা দিয়ে তৈরী হবে নানা উপকরণ। গাছ চাচা-ছোলার কাজ শেষ হলেও এখন নলি বসানোর কাজ শুরু হয়েছে।তাই শীতের মৌসুম শুরু হতে না হতেই গাছিদের সব প্রস্তুতি শেষের দিকে। এমন কোন বাড়ি নেই যে সেই বাড়িতে খেজুরের গাছ নেই। গ্রামের প্রায় বাড়িতেই লক্ষ্য করা যায় খেজুরের গাছ।
গাছ কেটে যারা প্রতিনিয়ত রস আহরণ করে স্থানীয় ভাষায় তাদেরকে গাছি বলা হয় আর যে নলের মাধ্যমে রস ফোটা ফোটা করে পড়ে তাকে নলি বলা হয়। প্রথমে গাছের মাথার ডগা পরিস্কার করা কষ্ট হলেও যখন গাছ থেকে রস সংগ্রহ শুরু হয় তখন আর গাছির আনন্দের শেষ থাকে সা। গাছিরা হাতে দা নিয়ে ও কোমরে দড়ি বেঁধে প্রতিদিন বিকাল বেলা গাছ কেটে নলিব মুখে পাত্র বসিয়ে পরের দিন খুব সকালে গাছ থেকে রসসহ পাত্র নামিয়ে ফেলে। এভাবে একে একে করে গাছ থেকে রস সংগ্রহ করে থাকে। খেজুরের মিষ্টি রস যে একবার পান করেছে, তার স্বাদ কোন দিন সে ভুলতে পারবে না। খেজুর রসের পায়েস ও ক্ষির তো খুবই মজাদার আবার এই রস দিয়ে তৈরী হয় পাটালি, গুড়। শীত মৌসুমে প্রতিটি গ্রামে গ্রামে গাছিরা গাছ খেকে রস আহরণ করে আর তা দিয়ে পায়েস ও পিঠে খাওয়ার ধুম পড়ে যায়। এই রসের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে সেইসাথে গুড় পাটালীর কদরও রয়েছে অনেক।খেজুরের রসের তৈরী যাবতীয় উপকরণ এনে দেয় বাড়তি স্বাদ।
দামুকদিয়া গ্রামের গাছি আনোয়ার বলেন, আর মাত্র কয়েক দিন পরই গাছ থেকে রস সংগ্রহ শুরু হবে। প্রতি বছর শীত মৌসুম এলেই আমরা গাছ কেটে পর্যায়ক্রমে রস সংগ্রহের উপযোগী করে থাকি।আমরা কাচা রস বিক্রি করি আবার রস থেকে গুড়ও পাটালি তৈরি করে বাজারে বিক্রি করে থাকি।
গাছিরা এখন চাচাছোলা আর নলি বসানো নিয়ে ব্যস্ত আর কয়টা দিন পরেই রস আহরণ শুরু হবে সেইসাথে তাদের মুখে হাসি ফুটবে। প্রায় গাছিই শীত মৌসুমের জন্য অপেক্ষায় থাকে কারণ তারা এই রস আহরণের মাধ্যমে জিবীকানির্বাহ করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.