স্বাস্থ্যের ‘উন্নতি’ দেখছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী

Share Now..

সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা সেবা এবং স্বাস্থ্য খাতে নানা অনিয়ম নিয়ে সংসদে আবারও তোপের মুখে পড়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক। বুধবার সংসদে ‘মেডিকেল ডিগ্রিস (রিপিল) বিল-২০২১’ এবং ‘মেডিকেল কলেজ (গভর্নিং বডিস) (রিপিল) বিল-২০২১’ পাসের প্রক্রিয়ার সময় বিএনপি ও জাতীয় পার্টির (জাপা) সংসদ সদস্যরা স্বাস্থ্যখাতের নানা সমালোচনা করেন। একের পর এক বেসরকারি মেডিকেল কলেজ স্থাপনের যৌক্তিকতা ও সেখানকার শিক্ষার মান, চিকিৎসকদের রাজনীতি করা, বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসা ব্যয় এবং চিকিৎসকদের প্রাইভেট প্র্যাকটিস নিয়ে প্রশ্ন তোলেন তারা।

বিএনপি-জাপার এমপিদের সমালোচনার জবাবে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, স্বাস্থ্যখাতের উন্নতি হয়েছে। করোনার সময় কেউ বাইরে যেতে পারেননি। সবাই দেশেই ছিলেন। কোভিড, নন-কোভিড সব চিকিৎসা দেশে হয়েছে। এখান থেকে বোঝা যায় হাসপাতালের অবস্থা ভালো। সরকারি চিকিৎসকদের রাজনীতি করা নিয়ে ওঠা প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘ডাক্তারদের অ্যাসোসিয়েশন রয়েছে। স্বাচিপ, বিএমএ রয়েছে। রাজনীতিতো সকলেই করতে পারে। প্রকৌশলী, আইনজীবীরা রাজনীতি করতে পারেন। সে অনুযায়ী চিকিৎসকরা অ্যাসোসিয়েশন করলে তাতে কোনো দোষ বা অন্যায় দেখি না। তারা তো সেবা দিচ্ছে।’

ডাক্তাররা যদি রাজনীতি করেন তাহলে আমাদের কাজটা কী: ফিরোজ রশীদ

বিল পাসের প্রক্রিয়ায় জাপার কো-চেয়ারম্যান কাজী ফিরোজ রশীদ বলেন, বিএনপি করে গিয়েছিল ড্যাব, আওয়ামী লীগ এসে করেছে স্বাচিপ। সেক্ষেত্রে আমরা কী কারণে বসে থাকছি? এই আইনের মধ্যে যদি মন্ত্রী আনতেন যে- ডাক্তাররা এবং বৈজ্ঞানিকরা রাজনীতি করতে পারবেন না, তাহলে খুব খুশি হতাম। কিন্তু সেটা আনা হয়নি। ডাক্তাররা যদি এই দেশে রাজনীতি করেন, তাহলে আমরা কি করব? আমাদের কাজটা কী? উনারা চলে আসুক রাজনীতি করতে। যারা ভালো ছাত্র তারা ডাক্তারি পড়ে। কিন্তু তারা যদি রাজনীতি করে তাহলে আমরা সেবা বঞ্চিত হচ্ছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *