হরিণাকুন্ডুতে শিশু ধর্ষণের ৫ দিন পর থানায় মামলা দায়ের

Share Now..

হরিণাকুণ্ডু প্রতিনিধিঃ
ঝিনাইদহের হরিণাকুন্ডু উপজেলার রঘুনাথপুর ইউনিয়নের কাচারীতোলা গ্রামে ১০ বছরের এক শিশুকন্যা ধর্ষনের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে।
তাকে ফুসলিয়ে পাটক্ষেতে নিয়ে ওই গ্রামের আনসার মন্ডল ওরফে ঝড়ুর ছেলে বাবর আলী (৪৩) ধর্যণ করেছে বলে অভিযোগ করেছে ভূক্তভোগীর পিতা।
ঘটনাটি ধামাচাপা দিতে লম্পট বাবর আলীর পরিবার শিশুটির পিতা-মাতাকে হুমকী দিয়ে মামলা করা থেকে বিরত থাকতে পরামর্শ দিয়েছে বলে যানিয়েছে ঐ ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার।
কিন্তু মেয়েটির রক্তক্ষরণ শুরু হওয়ায় ঘটনার ৫দিন পর হলেও সাহস বিকে ধরে গ্রামবাসির সহায়তায় হরিণাকুন্ডু থানায় শনিবার ধর্ষণের মামলা করে তার পিতা।
হরিণাকুন্ডু থানার এসআই আমিরুল ইসলাম অভিযোগ সহ মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন গত ৯ আগষ্ট দুপুরের দিকে শিশুটি বাড়ির পাশে খড়ি কুড়াতে যায়। এ সময় নিজের পাট ক্ষেতে ছিল বাবর আলী। শিশুটিকে কাছে ডেকে ফুসলিয়ে পাট ক্ষেতের মধ্যে নিয়ে যায় এবং জোরপূর্বক ধর্ষন করে বলে তার পরিবার জানিয়েছে, ঘটনাটি যাতে জানাজানি না হয় সে জন্য শিশুটির পরিবারকে চাপ দিয়ে আসছিলো বাবর আলী। কিন্তু ধর্ষনের ফলে মেয়েটির রক্তক্ষরণ শুরু হলে বিষয়টি গ্রাম জুড়ে প্রচার হয়ে যায়। প্রাথমিক ভাবে নিজতোলা গ্রামের পল্লী চিকিৎসক মুক্তির কাছে চিকিৎসা নেয় শিশুটি বলে তারা জানিয়েছে।
এদিকে শনিবার ধর্ষনের খবর পেয়ে হরিণাকুন্ডু থানার পুলিশ শিশুটিকে উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাপাতালে ডাক্তারী পরীক্ষা করায় এবং জবানবন্দি গ্রহন করে। আসামীকে গ্রেফতার করা হয়েছে কিনা জানতে চাইলে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই আমিরুল ইসলাম আরো জানান, থানায় ধর্ষন মামলা রুজু হওয়ার পূর্ব থেকেই আসামী বাবর আলী পালাতক রয়েছে। তনি আরও জানান আসামীকে গ্রেফতারে অভিজান অব্যাহত রয়েছে।

256 thoughts on “হরিণাকুন্ডুতে শিশু ধর্ষণের ৫ দিন পর থানায় মামলা দায়ের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *