হাজীগঞ্জে ঘুরতে এসে গণধর্ষণের শিকার তরুণী, আটক ২

Share Now..

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে নদী বাড়িতে ঘুরতে এসে এক তরুণী গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় ধর্ষণের শিকার ওই তরুণী (২০) বাদী হয়ে সোমবার (২৪ মে) চারজনকে আসামি করে হাজীগঞ্জ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেছেন।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত ৬নং পূর্ব বড়কুল ইউনিয়নের নোয়াদ্দা গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে মো. মহিনউদ্দিন (২৬), একই গ্রামের মাঝি বাড়ির মো. দুলাল মিয়াজীর ছেলে মো. শাকিল হোসেনকে (২৪) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। আরও দুই আসামি পলাতক রয়েছেন বলে জানা গেছে।

হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ মো. হারুনুর রশিদ জানান, উপজেলার জয়শরা গ্রামের ছৈয়াল বাড়ির মো. ফয়েজ আহমেদের মেয়ে (২০) গত ২২ মে নদী বাড়ি নামের একটি পার্কে ঘুরতে আসে। সেখানে শাকিল নামে এক যুবকের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। পরে রাতে ওই নারী বাড়ি যেতে চাইলে শাকিল ও তার সহযোগিরা কৌশলে নদী বাড়ি পার্ক সংলগ্ন একটি বালুর মাঠে নিয়ে ওই তরুণীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে। একই রাতে রান্ধুনীমুড়া বৈষ্ণব বাড়িসংলগ্ন শাকিলের খালার বাড়িতে নিয়ে রান্ধুনীমুড়া গ্রামের সাবেক কাউন্সিলর শুকুর আলমের বাড়ীর মো. ইউসুফের ছেলে ইসমাইল (৩২) ও তার ছোট ভাই কালু (২১) আরও কয়েবার ধর্ষণ করে।

নির্যাতিত তরুণীকে পরদিন সকালে রাস্তার পাশে মাঠে ফেলে যায় ধর্ষণকারীরা। মেয়ের কান্নাকাটি দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ মেয়েটিকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। পরে হাজীগঞ্জ থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়।

রবিবার (২৩ মে) দিবাগত রাতে অভিযান চালিয়ে ধর্ষণ মামলার দুই আসামিকে আটক করে। অপর দুই আসামি ইসমাইল ও তার ছোট ভাই কালুকে আটকের জন্য অভিযান অব্যাহত আছে। মামলাটি তদন্ত করছে পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) মোহাম্মদ ইব্রাহীম খলিল। সোমবার সকালে নির্যাতিত তরুণীকে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য চাঁদপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, পৌরসভাধীন রান্ধুনীমুড়া গ্রামের সাবেক কাউন্সিলর শুকুর আলমের বাড়ির মো. ইউসুফের ছেলে ইসমাইল (৩২) ও তার ছোট ভাই কালু (২১), ৬নং পূর্ব বড়কুল ইউনিয়নের নোয়াদ্দা গ্রামের আবদুল মান্নানের ছেলে মো. মহিনউদ্দিন (২৬) একই গ্রামের মাঝি বাড়ির মো. দুলাল মিয়াজীর ছেলে মো. শাকিল হোসেন তারা এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। নদী বাড়িতে তারা সব সময় ইয়াবা ও গাঁজা বিক্রি করে। বৈশ্বিক মহামারি করোনার মধ্যেও নদী বাড়ি নামের আড্ডা খানায় মেলা চালিয়ে যুবক-যুবতীদের মিলন মেলায় পরিণত করেছে। ফলে এখানে অবৈধ কার্যকলাপ চলছে বলে অভিযোগ স্থানীয়দের

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *